ঢাকা মঙ্গলবার, মার্চ ২১, ২০২৩

Popular bangla online news portal

রাশিয়া বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার ব্যর্থতার মূলে নিজেকেই দেখছেন মেসি


নিউজ ডেস্ক
৫:০৪ - শনিবার, অক্টোবর ২২, ২০২২
রাশিয়া বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার ব্যর্থতার মূলে নিজেকেই দেখছেন মেসি

বিশ্বকাপ ক্যারিয়ারে সবচেয়ে বাজে ফলাফলের মুখোমুখি গতবারই হয়েছিলেন লিওনেল মেসি। দল বিদায় নিয়েছিল দ্বিতীয় রাউন্ড থেকেই। গেল রাশিয়া বিশ্বকাপে দলের এমন ব্যর্থতার পেছনে নিজের দায়ই বেশি দেখছেন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানালেন তিনি। 

রাশিয়া বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে আর্জেন্টিনা মুখোমুখি হয়েছিল আইসল্যান্ডের। সেই ম্যাচের ১৯ মিনিটে সার্জিও আগুয়েরোর গোলে এগিয়ে গিয়েছিল দলটি। তবে আলফি ফিনবগাসনের গোলে এর মিনিট চারেক পরই সমতা ফেরায় আইসল্যান্ড। 

আর্জেন্টিনা অবশ্য সমতা ভাঙার, ম্যাচটা জেতার সুযোগ পেয়েছিল দ্বিতীয়ার্ধে। ম্যাচের ৬৩ মিনিটে পেনাল্টি পেয়েছিল দলটি, কিন্তু সেই পেনাল্টি থেকে গোল করতে পারেননি মেসি। আইসল্যান্ড গোলরক্ষক হ্যানেল হ্যালডরসন পেনাল্টিটা ঠেকিয়ে দেন দারুণভাবেই। সেই ম্যাচটা ড্র করে আলবিসেলেস্তেরা।

এরপর ক্রোয়েশিয়ার কাছে হেরে খাদের কিনারে চলে গিয়েছিল দলটি, যদিও শেষ ম্যাচে নাইজেরিয়াকে ২-১ গোলে হারিয়ে ‘সি’ গ্রুপের রানার্স আপ হয়ে চলে যায় শেষ ষোলোয়। সেখানে ‘ডি’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন হয়ে শেষ ষোলয় আসা ফ্রান্সের সামনে পড়ে দলটি। কিলিয়ান এমবাপের জোড়া গোলে ৪-৩ গোলে হেরে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেন মেসিরা। মেসির বিশ্বাস, সেদিন আইসল্যান্ডের বিপক্ষে পেনাল্টি থেকে গোলটা করতে পারলেই দৃশ্যটা বদলে যেত। সেটা করতে পারেননি, তাই দলের ব্যর্থতার মূলে নিজের দায়টাকেই বড় করে দেখছেন তিনি। সম্প্রতি ডিরেক্টিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানালেন এই কথা। 

মেসি বললেন, ‘আমি যদি সে দিন পেনাল্টি থেকে গোল করতে পারতাম, তা হলেই ছবিটা অন্য রকম হতো।’ কেন হতো, সেটাও জানালেন মেসি। বললেন, ‘বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ। প্রথম ১৫ মিনিট সব সময়ই উৎকণ্ঠা ও স্নায়ুচাপ থাকে। এই সময় অনেক কিছু ঘটে যেতে পারে। তা ছাড়া প্রথম ম্যাচ সব সময়ই গুরুত্বপূর্ণ হয়। এর উপরেই নির্ভর করে কতটা চাপমুক্ত হয়ে খেলতে পারবে সবাই।’ 

‘আমি সব সময়ই বলি, আইসল্যান্ডের বিরুদ্ধে পেনাল্টি থেকে আমি যদি গোলটা করতে পারতাম, তাহলে জয় দিয়ে বিশ্বকাপে যাত্রা শুরু করতে পারতাম। পুরো পরিস্থিতিটাই সম্পূর্ণ বদলে যেত। এই কারণেই শুরুটা খুব ভাল হওয়া প্রয়োজন।’ 

মূলত আসছে কাতার বিশ্বকাপ প্রসঙ্গেই উঠে আসে কথাটি। আসছে বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা আছে ‘সি’ গ্রুপে, সেখানে দলটির প্রতিপক্ষ সৌদি আরব, মেক্সিকো ও পোল্যান্ড। টানা ৩৫ ম্যাচে অপরাজিত আর্জেন্টিনার প্রথম ম্যাচ সৌদি আরবের বিপক্ষে, আগামী ২২ নভেম্বর মাঠে নামবে দুই দল। প্রতিপক্ষ সহজ হলেও প্রথম ম্যাচে চাপটা অনেক বেশি, সেটা বুঝাতে গিয়েই আইসল্যান্ড ম্যাচের প্রসঙ্গ টেনে আনেন মেসি। সেবারের সেই ‘ব্যর্থতা’ যে এবার ঘুচিয়ে দিতে চাইবেন মেসি, তা বলাই বাহুল্য।