ঢাকা সোমবার, জুন ৫, ২০২৩

Popular bangla online news portal

কুবির বন্ধ হল খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত প্রসাশনের


নিউজ ডেস্ক
১৪:৫৬ - শনিবার, অক্টোবর ৮, ২০২২
কুবির বন্ধ হল খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত প্রসাশনের





কুবি প্রতিনিধি::  আগামীকাল (৯ অক্টোবর) ১২ টায় কুবির সকল বন্ধ হল খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রশাসন। আজ (৮ অক্টোবর) ১২ টায় উপাচার্যের এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। 


সভায় আরো জানানো হয়, হলে আবাসিক শুধু মাত্র আবাসিক শিক্ষার্থীরা উঠতে পারবে। যাদের আবাসিকতা নেই কিন্তু পূর্বে হলে অবস্থান করতো তারা আইডি কার্ড দেখিয়ে হলে উঠতে পারবে। এছাড়া ১০ থেকে ১৭ অক্টোবর পরিক্ষা স্থগিত থাকবে আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী। 

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রভোস্ট ড. মোকাদ্দেস-উল-ইসলাম বলেন, আগামীকাল ১২টায় হল খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। ১২টায় হলে উঠতে পারবে শিক্ষার্থীরা। তবে আবাসিক শিক্ষার্থীরাই হলে উঠতে পারবে। যাদের আবাসিকতা নেই কিন্তু হলে থাকে তারা হলের অফিস থেকে আবাসিক ফরম নিবে এবং ব্যাংকে টাকা জমা দিয়ে হলে উঠবে। আবাসিকতার আইডি কার্ড করার জন্য আমরা দেড় মাস সময় দিব।

নওয়াব ফয়জুন্নেছা চৌধুরাণী হলের প্রভোস্ট জিল্লুর রহমান বলেন, হলে যাদের আবাসিকতা নেই তাদেরকে সাময়িক পরিচয়পত্র দেওয়া হবে। আবাসিকতার জন্য ফরম পূরণ করে হলে উঠতে হবে। সেক্ষেত্রে ব্যাংকে টাকা জমা দেওয়ার জন্য এক সপ্তাহ সময় দেওয়া হবে।  

এদিকে পরীক্ষা স্থগিত রেখে হল খুলে দেওয়ার বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনা করছেন শিক্ষার্থীরা। তারা বলছেন হল খুলে দিতে পারলে প্রশাসন কেন পরীক্ষা নিতে পারবে না।

এবিষয়ে জানতে উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এফ এম আবদুল মঈনের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাঁকে পাওয়া যায়নি। তবে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির বলেন, আমরা শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবন যাতে কোনভাবে ব্যাহত না হয় সে বিষয়ে সম্পূর্ণ ওয়াকিবহাল আছি। যে কাজটি তাদের জন্য মঙ্গলজনক হবে সেটিই বিশ্ববিদালয় প্রশাসন করবে।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর (শুক্রবার) কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের কমিটি 'বিলুপ্তি' ঘোষণাকে কেন্দ্র করে ১ অক্টোবর (শনিবার) বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের পাল্টা পাল্টি অস্ত্র মহড়ায় অস্থিতিশীল হয়ে উঠে ক্যাম্পাস। বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় ২ অক্টোবর (রোববার) বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের জরুরী মিটিংয়ের সিদ্ধান্ত মোতাবেক বিশ্ববিদ্যালয়ের সবগুলো আবাসিক হল অনির্দিষ্টকালের জন্য সীলগালা করা হয়। এমনকি ১০ অক্টোবর থেকে ১৭ অক্টোবরের সকল পরীক্ষা স্থগিত করা হয়।